প্রাথমিক, মাধ্যমিক, উচ্চ মাধ্যমিক সহ স্নাতক শিক্ষার্থীরা পাচ্ছে উপবৃত্তি প্রধান মন্ত্রী শেখ হাছিনা।

50 লাখ পরিবার পাচ্ছে 2500 টাকা করে। সারা দেশে করোনা ভাইরাসে ক্ষতিগ্রস্ত ৫০ লাখ হতদরিদ্র পরিবার পাচ্ছে আড়াই হাজার টাকা করে নগদ সহায়তা আর স্নাতক ও সমমান পর্যায়ের ২০১৯ খ্রিষ্টাব্দের শিক্ষার্থীরা পাচ্ছেন উপবৃত্তি ও টিউশন ফি।

আজ বৃহস্পতিবার (১৪ মে) বেলা সাড়ে ১১টার দিকে গণভবন থেকে মোবাইল ব্যাংকিং পরিষেবার মাধ্যমে সুবিধাভোগীদের হিসেবে সরাসরি নগদ অর্থ প্রেরণের এই কার্যক্রম উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী। বিতরণ চলবে আসন্ন ঈদুল ফিতরের আগ পর্যন্ত।

50 লাখ পরিবার পাচ্ছে 2500 টাকা করে

বর্তমান সময়ের সবচেয়ে বড় ট্রাজেডি করোনা ভাইরাসের কারনে গৃহবন্ধি হয়ে পড়েছে মানুষ। এর মধ্যে অসহায় হয়ে আছে নিম্ন আয়ের মানুষজন। তাদের পাশে বৃত্তবান লোকদের দাড়ানোর কথা বলেন মমতাময়ী মাননীয় প্রধান মন্ত্রী শেখ হাছিনা। তিনি আজ প্রাথমিক বিদ্যালয়, মাধ্যমিক বিদ্যালয়, উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয় এবং স্নাতক পর্যায়ে উপবৃত্তি প্রদান করেন। সেই সাথে করোনা ভাইরাসে মানুষ যেন ঘরে থাকে তাদের জন্য ৫০ লক্ষ পরিবারকে দেয়া হবে ২৫০০ টাকা করে সিধান্ত নেয় মন্ত্রিপরিষদ।

করোনা ভাইরাসে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বক্তব্য

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমরা ৫০ লাখ পরিবারের মধ্যে এই সহায়তা প্রদান করছি। আগেই আমাদের সামাজিক নিরাপত্তা বেষ্টনীর আওতায় বিধবা ভাতা, বয়স্ক ভাতাসহ বিভিন্ন ভাতা ও ১০ টাকা কেজিতে চালের ব্যবস্থা করেছি। ওই সুবিধা যারা পাচ্ছেন তাদের বাইরে যারা বর্তমানে অসহায় হয়ে পড়েছেন তারাই কেবল এই সহায়তা পাবেন। এই লক্ষ্যে আমরা এক হাজার দুই শ কোটি টাকার ব্যবস্থা করেছি। এর আওতায় আড়াই হাজার টাকা করে এককালীন প্রত্যেক পরিবার পাবে। আর স্নাতক শিক্ষার্থীরা পাবে উপবৃত্তি ও টিউশন ফি।

চালু হল স্নাতক পর্যায়ে উপবৃত্তি

প্রধানমন্ত্রী আরো বলেন, এই ক্ষেত্রে যাতে কোনো ঝামেলা না হয় তার জন্য আমরা সিদ্ধান্ত নিয়েছি মোবাইল ফোনের মাধ্যমে এই টাকা পৌঁছে দেব। এ কোনো বাড়তি চার্জও লাগবে না। আমরা জানি, সুবিধাপ্রাপ্তদের জন্য এটি বিশেষ কিছু নয়। তবু এখন রমজান মাস চলছে। সামনে ঈদ। এই সময় আপনাদেরকে যে কিছু দিলাম, এটিই সান্ত্বনা।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*